ব্লগার নিউজ

‘ধর্মীয় মৌলবাদ’ বিরোধী ছিলেন ব্লগার ওয়াশিকুর

রাজধানীর তেজগাঁও শিল্পাঞ্চল এলাকায় ওয়াশিকুর রহমান (২৮) নামে এক ব্লগারকে চাপাতি দিয়ে নির্মমভাবে কুপিয়ে হত্যা করেছে সন্ত্রাসীরা। এ ঘটনায় দুজনকে আটক করেছে পুলিশ।

তেজগাঁও শিল্পাঞ্চল থানার সহকারী উপ-পরিদর্শক (এএসআই) হুমায়ুন কবির জানান, সকাল সাড়ে ১০টায় ওয়াশিকুরকে বেগুনবাড়ি দিপীকার ঢাল থেকে রক্তাক্ত অবস্থায় উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে আনা হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

ওয়াশিকুরের পকেট থেকে পাওয়া ভোটার আইডি কার্ড থেকে জানা যায়- তার বাবার নাম টিপু সুলতান। তিনি তেজগাঁওয়ের বেগুনবাড়ি এলাকায় থাকেন।

এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে জিকরুল্লাহ ও আরিফুল ইসলাম নামে দুজনকে হাতেনাতে আটক করেছে পুলিশ। অন্য একজন পালিয়ে যেতে সক্ষম হয়। আটকরা হত্যাকাণ্ডে জড়িত বলে স্বীকার করেছেন।

ওই দুজন জানিয়েছেন নিহত যুবক ব্লগার ছিলেন বলে তাকে হত্যা করা হয়েছে। এসময় তিনটি চাপাতিও উদ্ধার করা হয়।

আদর্শিক কারণে হত্যা?

এদিকে বার্তা সংস্থা এএফপির এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে দুই মাসেরও কম সময়ের ব্যবধানে আরো এক ব্লগারকে জীবন দিতে হলো।

এর আগে গত ২৬ ফেব্রুয়ারি বইমেলা থেকে ফেরার পথে কুপিয়ে হত্যা করা হয় ‘নাস্তিক’ ব্লগার অভিজিৎ রায়কে।

ওয়াশিকুর ধর্মীয় বিষয় নিয়ে না লিখলেও তার সহযোগী লেখকরা বলছেন তিনি ধর্মীয় মৌলবাদের বিরোধী ছিলেন।

পুলিশ  জানিয়েছে,  ফেসবুকে তার ওয়াশিকুর বাবু নামে একটি একাউন্ট ছিল যেখানে তিনি ইসলামকে উপহাস করে লেখা অন্য লেখকদের লেখা পোস্ট করতেন।

পুলিশের ডেপুটি কমিশনার বিপ্লব কুমার সরকার বলেছেন, হত্যার উদ্দেশ্য আদর্শিক বলে মনে হচ্ছে।  কারণ তিনি উগ্র ইসলামপন্থীদের সমালোচনা করতেন।

ব্লগার আসিফ মহিউদ্দিন দাবি করেন, ওয়াশিকুর তাদের ‘সহযোদ্ধা’।

বার্লিন থেকে এএফপিকে আসিফ বলেন, ‘তিনি আমার বন্ধু এবং সহযোদ্ধা। তিনি নাস্তিক ছিলেন এবং মানবধর্মে বিশ্বাস করতেন।’

ব্লগার এবং শাহবাগ আন্দোলনের নেতা ইমরান সরকার জানিয়েছেন ওয়াশিকুর রহমান ‘কুৎসিত হাঁসের ছানা’ ছদ্মনামে ব্লগ লিখতেন।

এ নিয়ে বাংলাদেশে তিনজন ব্লগারকে জীবন দিতে হলো। ২০১৩ সালে কুপিয়ে হত্যা করা হয় ব্লগার আহমেদ রাজিব হায়দারকে।